কতিপয় ক্ষেত্রে আদলাতের কর্তৃক ক্ষতিপূরণ মঞ্জুর করার ক্ষমতা । Part-06

0
248
কতিপয় ক্ষেত্রে আদলাতের কর্তৃক ক্ষতিপূরণ মঞ্জুর করার ক্ষমতা

সুনির্দিষ্ট প্রতিকার আইন,১৮৭৭ । Specific Relief Act-1877।  Part-06

সুনির্দিষ্ট প্রতিকার আইন,১৮৭৭ এর ধারা-১৯ বলা হয়েছে,

কোন ব্যক্তি যদি সুনির্দিষ্ট ভাবে কোন চুক্তি সম্পাদনের জন্য আবেদন করে কিন্তু কোন কারনে যদি চুক্তিটি  সুনির্দিষ্ট ভাবে কার্যকর করা সম্ভব না হয়, সেই ক্ষেত্রে আদালতে চুক্তি ভঙ্গের পরিপুরক হিসেবে ক্ষতি পূরণ দাবী করতে পারে।

যদি কোন মামলায় আদালত সিদ্ধান্ত নেই যে, চুক্তিটি সুনির্দিষ্ট ভাবে পালন করার আদেশ প্রদান করা সঙ্গত নয় তবে বাদি ও প্রতবাদির মধ্যে একটি ছিল যা ভঙ্গের ফ্লে বাদি ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। সেই ক্ষেত্রে বাদি ক্ষতিপূরণ পাওয়ার অধিকারি হবে। আদালত তাকে একটি নির্দিষ্ট পরিমাণে ক্ষতিপূরণ প্রদানের জন্য নির্দেশ দিবেন।

উদাহরণঃ ক খ এর নিকট থেকে ৫০ মন আলু কিনার জন্য চুক্তি করে।  খ চুক্তি অনুযায়ী কার্য সম্পাদনের জন্য আদালতে আবেদন করে। কিন্তু আদালত মত প্রকাশ করে যে, ক ও খ এর মধ্যে যেচুক্তি হয়েছিল বা বৈধ, তবে সঙ্গত কারনে চুক্তি পালন করা সম্ভব নয়। যেই কারনে খ ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে সেই ক্ষেত্রে বাদি আদালতে ক্ষতিপূরণ পাওয়ার জন্য আবেদন করতে পারে। আদালত যেটা উপযক্ত মনে করবেন সেই পরিমাণে ক্ষতিপূরণ প্রদানের জন্য ক কে নির্দেশ দিবেন।

যদি কোন ক্ষেত্রে আদালত উপযুক্ত মনে করে চুক্তি সুনির্দিষ্ট ভাবে সম্পাদন করা আবশ্যক কিন্তু চুক্তি সুনির্দিষ্ট ভাবে পালন করলেই ন্যায় বিচার নিশ্চিত করা সম্ভব নয়। তাহলে আদালত চুক্তি সুনির্দিষ্ট ভাবে পালনের সাথে সাথে একটি নির্দিষ্ট পরিমাণে ক্ষতিপূরণ প্রদানের আদেশ দিবেন।

উদাহরণঃ

ক ‘খ’ এর নিকট থেকে একটি জমি ১,০০,০০০ টাকা বিক্রয় করার জন্য চুক্তিবদ্ধ হয়। চুক্তি অনুযায়ী ২০০৮ সালের ২০মে চুক্তি টি কার্যকর করার কথা থাকলেই ক তা সম্পাদন করে নি। পরবতীতে ‘খ’ আদালতে মামলা দায়ের করে। আদালত ২০১৮ সাথের মে মাসের ১৮ তারিখে রায় দেয় চুক্তিটি সুনির্দিষ্ট ভাবে পালন করতে হবে এবং যথা সময়ে চুক্তি সম্পাদন না করার কারনে আদালত ক্ষতিপূরণ প্রদানের  নির্দেশ দিতে পারেন।

এর ধারা অনুসারে আদালত যে পরিমাণে ক্ষতিপূরণ প্রদানের নির্দেশ দেয় তা তা আদালত কর্তৃক নির্দিষ্ট প্রন্থায় নির্ধারিত করেন।

Facebook Comments