সুনির্দিষ্ট প্রতিকার আইন অনুসারে যে সকল ক্ষেত্রে চুক্তি রদ করা যায়।

0
192

সুনির্দিষ্ট প্রতিকার আইন,১৮৭৭ এর ধারা ৩৫ থেকে ৩৮ ধারাতে চুক্তি কখন রদ করা যাবে, ভুলের জন্য কখন রদ করা যাবে, সুনির্দিষ্ট সম্পাদনের বিপরীতে রদ ইত্যাদি বিষয়ে আলোচনা করা হয়েছে।

বিচারপুর্বক রদ করা যায় ( When Rescission may be Adjudged)

সুনির্দিষ্ট প্রতিকার আইনের ৩৫ ধারাতে বিচারপুর্বক চুক্তি রদের সর্ম্পকে আলোচনা করা হয়েছে। এতে বালা হয়েছে, লিখিত চুক্তিতে স্বার্থ আছে এম্ন যে কোন ব্যক্তি চুক্তি রদের জন্য আদালত মামলা দায়ের ক্রতে পারবে। তবে আদালতে মামলা দায়ের করলেই আদালত চুক্তি রদের আদেশ দিবে না বরং আদালত চুক্তি রদের আদেশ প্রদানের পুর্বে নির্দিষ্ট কিছু বিষয় বিবাচনা করে চুক্তি রেদের আদেশ দিবেন। আদালত যে বিষয় গুলো বিবেচনা করবেঃ

ক। যে ক্ষেত্রে চুক্তি টি বাতিলযোগ্য বা বাদী কর্তৃক চুক্তিটি Terminate  করা হয়েছে।

উদাহরণঃ ‘ক’ খ  এর সাথে  চুক্তি করলো যে খ পাকিস্থান থেকে একটি   যন্ত্র এনে দিবে।  কিন্তু চুক্তি করার পর বাংলাদেশ পাকিস্থানের সাথে সকল ধরনের আমদানি রপ্তানি নিষিদ্ধ করে, যেহেতু এই ক্ষেত্রে চুক্তিটি সুনির্দিষ্ট ভাবে পালন করা সম্ভব নয়। তাই বাদি চাইলে চুক্তি রদের জন্য আদালতের কাছে আবেদন করতে পারবে।

খ। যেক্ষেত্রে আপাত দৃষ্টিতে চুক্তিটি বৈধ মনে হলেও বাস্তবে চুক্তিটি অবৈধ এবং বাদীর চেয়ে বিবাদী কে এই অবৈধের জন্য বেশী দায়ী।

গ, যেখানে একটি বিক্রয় চুক্তি অথবা একটি ইজারা গ্রহণের চুক্তির সুনির্দিষ্ট কার্য সম্পাদনের জন্য ডিক্রি প্রদান করা হয়েছে এবং ক্রেতা, ইজারাদার ক্রয়মূল্য বা অপরাপর অর্থ পরিশোধে ব্যর্থ হয়েছে যা আদালত তাকে পরিশোধ করার নির্দেশ দিয়েছিলেন। হিসেবে গৃহীত খাজনা এবং লাভ বিক্রেতা বা ইজারাদাতাকে প্রদান করার নির্দেশ প্ৰদান করতে পারেন। একই ক্ষেত্রে আদালত সে মামলায়ই আদেশের মাধ্যমে যাতে ডিক্রি প্রদান করা হয়েছিল, কিন্তু তদানুযায়ী কাজ করা হয়নি হয় কর্তব্য অবহেলাকারী পক্ষের বেলায় অথবা সম্পূর্ণ চুক্তিই মামলায় ন্যায়বিচারের আবশ্যক অনুযায়ী রদ করে দিতে পারেন।

ভুলের জন্য চুক্তি রদঃ  ( Rescission of Mistake)

সাধারণত শুধুমাত্র ভুলের জন্য লিখিত চুক্তি রদ করা যায় না। তবে শর্ত হল যে, চুক্তি রদ করলে বিবাদীর কোন ক্ষতি হ্য় না এবং চুক্তি টি পুনারায় আগের অবস্থায় ফেরত আনা সম্ভব। যেন কোন চুক্তিই সম্পাদিত হয় নি। (ধারা-৩৬)

শুধু এই ক্ষেত্রেইলিখিত চুক্তি ভুলের জন্য রদ করা যেতে পারে।

সুনির্দিষ্ট কার্য সম্পাদনের মামলার বিকল্প হিসেবে রদঃ

বাদি যদি সুনির্দিষ্ট ভাবে চুক্তি সম্পাদনের জন্য আদালতে মামলা দায়ের করে তাহলে তার সাথে আরো একটি বিকল্প আবেদন তিনি করতে পারেন। যে চুক্তিটি সুনির্দিষ্ট ভাবে পালন করা হোক অথবা চুক্তিটি রদ করা হোক। তবে এই ক্ষেত্রে আদালত চুক্তি রদ বা চুক্তি সুনির্দিষত ভাবে পালন করার নির্দেশ দিতে পারে। এটা আদালতের ইচ্ছার উপর নির্ভরশীল। তবে অবশ্যই দুটি আবেদনের বিষয়বস্তু একই  হতে হবে (ধারা-৩৭)

উদাহরণঃ ‘ক’ খ’ এর নিকট থেকে ১০ শতাংশ জমি ক্রয় করার জন্য চুক্তিবদ্ধ হয়। নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে চুক্তিটি কার্যকর করার কথা থাকলেও ক তা করেনি। তাই খ বাধ্য হয়ে আদালতে সুনির্দিষ্ট ভাবে চুক্তি সম্পাদনের জন্য মামলা দায়ের করে। এবং সাথে আরো একটি আবেদন করে যে চুক্তিটি সুনির্দিষ্ট ভাবে সম্পাদন করা হোক অথবা চুক্তিটি রদ করা হোক।

এই ক্ষেত্রে আদালত চুক্তি সুনির্সিষ্ট ভাবে সম্পাদনের নির্দেশ দিতে পারে অথবা চুক্তিটি রদ করার নির্দেশও দিতে পারে।

আদালত রদকারী পক্ষের তরফ হতে ন্যায়পরায়ণতা আবশ্যক বোধ করতে পারেঃ

আদালত যদি কোন চুক্তি রদ করার নির্দেশ দেন তাহলে বিবাদী যাতে ক্ষতিগ্রস্থ না হয় সেদিকে লক্ষ্য রাখবেন অর্থাৎ বিবাদীর ন্যায়বিচার নিশ্চিত করবেন। আদালত উপযুক্ত মানে করলে ক্ষতিপূরণ প্রদানের আদেশ দিতে পারেন । (ধারা-৩৮)

Facebook Comments